জাতীয় মহিলা সংস্থা মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আমার ইন্টারনেট আমার আয় কর্মসূচি:

আমার ইন্টারনেট আমার আয় কর্মসূচি

কর্মসূচির নাম :

আমার ইন্টারনেট আমার আয়

প্রশাসনিক মন্ত্রণালয়/বিভাগ:

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়

দায়িত্বপ্রাপ্ত কোম্পানি:

কমজগৎ টেকনোলজিস

কর্মসূচি পরিচালক:

শারমিন আক্তার জাহান (সিনিয়র সহকারী সচিব, উপ-পরিচালক, জাতীয় মহিলা সংস্থা)

কার্যক্রম শুরু:

৫ই নভেম্বর, ২০১৭

বাস্তবায়নকাল:

জুলাই ২০১৭  - জুন ২০১৯  (২ বছর)

কার্যক্রম পরিধি:

  • মোট জেলা: ৬৪টি
  • জেলা প্রতি প্রশিক্ষণার্থী: ৩৬ জন
  • মোট প্রশিক্ষণার্থী: ৩৬ x ৬৪ = ২৩০৪ জন  
  • জেলা প্রতি প্রশিক্ষণ মেয়াদকাল: ৬ মাস

কর্মসূচির অন্তর্ভুক্ত প্রশিক্ষণার্থীদের জন্য ওয়েবসাইটসমূহ:

  • ট্রেনিং মডিউল ও বিষয়ভিত্তিক টিউটোরিয়াল: www.aiaa.gov.bd
  • ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস: www.womenfreelancer.gov.bd

কর্মসূচির উদ্দেশ্য:

  • বর্তমান যুগ ইন্টারনেট নির্ভর। নারীদেরকে ইন্টারনেট ব্যবহারের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্স আউটসোর্সিংয়ে উৎসাহ প্রদান করা এবং নারী ফ্রিল্যান্স আউটসোর্সারদের সংখ্যা বৃদ্ধি করা, যেন তারা ঘরে বসে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারে।
  • আইসিটি প্রযুক্তির প্রায়োগিক ব্যবহার সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান প্রদানের মাধ্যমে নারীদের স্বাবলম্বী করে তোলা।
  • অর্থনৈতিক উন্নয়ন নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে নারীদের সামাজিক উন্নয়নে সহায়তা প্রদান করা।
  • আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে অধিক পরিমাণে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন এবং জাতীয় প্রক্রিয়ায় বেকার জনগোষ্ঠীকে সম্পৃক্ত করার উপযোগি করে তোলা।
  • প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত মহিলাদের মধ্যে যারা সফলভাবে ফ্রিল্যান্স আউটসোসিং করবে তাদের ঋণ প্রাপ্তিতে সহায়তা প্রদান করা।  
  • কর্মসূচিটি ২টি পর্যায়ে সম্পাদন হবে। পাইলট প্রজেক্ট হিসাবে প্রথম বছর ৩টি বিভাগের (ঢাকা, চট্রগ্রাম, বরিশাল) ৩০টি জেলার মোট ১,০৮০ জন প্রশিক্ষণার্থীকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। পাইলট প্রজেক্ট সম্পাদন হওয়ার পর দ্বিতীয় পর্যায় (দ্বিতীয় বছর) শুরু করা হবে এবং অবশিষ্ট ৫টি বিভাগের ৩৪টি জেলার ১,২২৪ জন প্রশিক্ষণার্থীকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।

কর্মসূচির আওতাধীন কার্যক্রম:

  • একটি যুগোপযোগী ফ্রিল্যান্সিং ট্রেনিং মডিউল তৈরি করা।
  • সহজবোধ্য এবং ইন্টারঅ্যাক্টিভ ডিজিটাল কনটেন্ট তৈরি করা।
  • ট্রেনিং ওয়েব প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা।
  • প্রতি জেলায় ৩৬ জন করে প্রশিক্ষণার্থী নির্বাচন করা, যারা ইতোমধ্যেই জাতীয় মহিলা সংস্থার জেলা ভিত্তিক মহিলা কম্পিউটার প্রশিক্ষণ (৬৪ জেলা) প্রকল্প থেকে বিভিন্ন ব্যাচে সার্টিফিকেট প্রাপ্ত।
  • প্রতি জেলার বাছাইকৃত প্রশিক্ষণার্থীদের ৬ মাস প্রশিক্ষণ এবং প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করা

৬ মাসব্যাপী এই ট্রেনিং ৩টি ধাপে বিভক্ত-

১. ২২টি অনলাইন লাইভ ক্লাস

২. সংস্থার নিজস্ব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ৬দিন ব্যাপী সরাসরি (ফেস টু ফেস) ট্রেনিং

৩. ট্রেনিং পরবর্তী চার মাস পর্যন্ত অনলাইন ট্রেনিং সাপোর্ট

এক নজরে “আমার ইন্টারনেট আমার আয়” কর্মসূচি:

৫ নভেম্বর ২০১৭ তে “আমার ইন্টারনেট আমার আয়”শীর্ষক কর্মসূচির আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ভোধন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী বেগম মেহের আফরোজ চুমকী এম পি, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সচিব নাছিমা বেগম এনডিসি, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান অধ্যাপক মমতাজ বেগম অ্যাডভোকেট সহ আরো প্রমূখ ব্যক্তিবর্গ।

এর পূর্বেই আমরা ট্রেনিং মডিউল, বহু সংখ্যক ডিজিটাল কনটেন্ট এবং ট্রেনিং ওয়েব প্ল্যাটফর্মটি প্রস্তুত করি। আমরা ইতোমধ্যে ১৬৪টি ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করেছি যা এই ওয়েবসাইট (www.aiaa.gov.bd) থেকে সহজেই পেয়ে যাচ্ছেন আমাদের শিক্ষার্থীরা। আর এই ট্রেনিং ওয়েব প্ল্যাটফর্মটি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে শিক্ষার্থীরা হাতের কাছেই পেয়ে যায় সহজবোধ্য টেক্সট ম্যাটেরিয়াল, ইন্টারঅ্যাক্টিভ ভিডিও কনটেন্ট এবং নিজের অগ্রগতি মূল্যায়নের জন্য দারুণ একটি এক্সাম মডিউল।

৬ নভেম্বর, ২০১৭ থেকে এই কর্মসূচির ক্লাস শুরু হয়। শুরুতেই ঢাকা বিভাগের ৫টি এবং চট্টগ্রাম বিভাগের ৩টি সহ মোট ৮টি জেলার শিক্ষার্থী নিয়ে শুরু হয় এই কর্মসূচি। এখন অবধি মোট ৩০টি জেলায় এই ট্রেনিং সম্পন্ন করা হয়েছে। বাকি জেলাগুলোতেও প্রশিক্ষণ দেয়ার কাজ চলছে (আপডেট: ৩০ জুন, ২০১৮)।

কেবলমাত্র জাতীয় মহিলা সংস্থার জেলা ভিত্তিক মহিলা কম্পিউটার প্রশিক্ষণ (৬৪ জেলা) প্রকল্প থেকে বিভিন্ন ব্যাচে সার্টিফিকেট প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরাই এই প্রশিক্ষণের জন্য বিবেচিত হবে।

এই ট্রেনিংয়ে প্রতিটি প্রশিক্ষণার্থীকে একটি করে ফ্রিল্যান্সিং গাইড বই, সনদপত্র ও বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে অনলাইনে ক্লাস করার জন্য ইন্টারনেট বিল বাবদ ভাতা দেয়া হয়। অনলাইনে পড়াশোনা এবং তাদের পরীক্ষা নেয়ার জন্য একটি ই-লার্নিং ওয়েবসাইট (www.aiaa.gov.bd)  তৈরি করা হয়েছে। যেখানে প্রতিটি টপিকের উপর যুগোপযোগী ট্রেনিং ম্যাটেরিয়াল প্রস্তুত করা আছে। প্রশিক্ষণার্থীদের সার্বক্ষণিক সাপোর্টের জন্য তৈরি করা হয়েছে ভিডিও টিউটোরিয়াল। এই ওয়েবসাইটে প্রত্যেক প্রশিক্ষণার্থীর জন্য অনলাইন পরীক্ষা দেয়ার ব্যবস্থাও রয়েছে।

এই কর্মসূচির আওতায় গড়ে তোলা হয়েছে আরো একটি ওয়েবসাইট (www.womenfreelancer.gov.bd)। যেটিকে আন্তর্জাতিক মানের ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলোর মতো করেই তৈরি করা হয়েছে। যেখানে ফ্রিল্যান্সিংয়ের বিভিন্ন কাজ দেয়া এবং নেয়া, দুটোর ব্যবস্থাই রয়েছে। এই ওয়েবসাইটে ‘আমার ইন্টারনেট আমার আয়’ কর্মসূচি থেকে প্রশিক্ষণ নেয়া স্টুডেন্টদের প্রোফাইল আপলোড করার ব্যবস্থা রয়েছে।

ট্রেনিংয়ের বিষয়সমূহ:

  • ডাটা এন্ট্রি
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন
  • ওয়েব ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট
  • সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন
  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • বেসিক অব ই-কমার্স বিজনেস
  • ইফেক্টিভ কমিউনিকেশন

Share with :

Facebook Facebook